IELTS কি এবং কেন ? IELTS দিতে কত টাকা খরচ হয়? IELTS পরীক্ষার পদ্ধতি এবং ব্যান্ড স্কোর।

IELTS কি এবং কেন ? আইইএলটিএস দিতে কত টাকা খরচ হয়? IELTS পরীক্ষার পদ্ধতি এবং ব্যান্ড স্কোর।
IELTS কি এবং কেন ? IELTS কেন দিতে হয়? আইইএলটিএস দিতে কত টাকা খরচ হয়? IELTS পরীক্ষার পদ্ধতি এবং ব্যান্ড স্কোর? এছাড়াও IELTS সম্পর্কিত অনেক তথ্য জানতে পারবেন। তাহলে চলুন শুরু করা যাক।

IELTS কি?  

IELTS একটি ইংরেজি ভাষার দক্ষতার পরীক্ষা। যা আপনার ইংরেজি ভাষা দক্ষতা যাচাই করে, আপনি ইংরেজি তে কতটা পারদর্শী তা নির্নয় করে।

IELTS এর পূর্ণরুপ হলো “International English Language Testing System”।

IELTS কেন দিতে হয়?

IELTS পরীক্ষা দেওয়ার অনেক গুলো কারন আছে।  মুল কারণগুলি সংক্ষেপে নিম্নে দেওয়া হল :

1. বিদেশে শিক্ষা: বিদেশে উচ্চশিক্ষার জন্য IELTS প্রয়োজন হয়। বিশেষ করে ইউরোপ এর দেশ গুলো তে বেশি দরকার হয়। ইংরেজি ভাষাভাষী দেশে বেশিরভাগ স্কুল/কলেজ/ইউনিভার্সিটি তে IELTS বাধ্যতামূলক।

2. বিদেশে চাকরি: বিদেশে চাকরির জন্য প্রয়োজনীয় ভাষা দক্ষতা প্রমাণ করার জন্য IELTS এর সার্টিফিকেট দেখাতে  হয়। আপনি সেখানে গিয়ে অন্য মানুষ এর সাথে যোগাযোগ করতে পারবেন কিনা তার জন্য এই ইংরেজি ভাষার দক্ষতার প্রমাণ দিতে হয়।

3. মাইগ্রেশান: কিছু দেশে অবস্থিতি স্থায়ী করার জন্য ভাষা দক্ষতা প্রমাণ করার জন্য IELTS দিতে হয়।

4. স্কলারশিপ এবং গবেষণা: কিছু বিদেশী বিশ্ববিদ্যালয় স্কলারশিপ বা গবেষণা সুযোগ প্রদান করে, এটি গ্রহণ করার জন্য IELTS প্রয়োজনীয় হতে পারে। এক্ষেত্রে ও ইংরেজি ভাষাভাষী দেশে ও ইউরোপ এর প্রায় সকল দেশে IELTS লাগে।

এগুলো হচ্ছে IELTS কেন দিতে হবে তার প্রধান কারন। এর বাহিরে ও আরো প্রয়োজন থাকতে পারে।

আইইএলটিএস দিতে কত টাকা খরচ হয়?

দেশ ও সময় অনুযায়ী খরচ নির্ভর করে। দিনদিন এই খরচ কিন্তু বৃদ্ধি পাচ্ছে। ২০২৩ সাল এ IELTS দিতে প্রায় ২০ হাজার টাকা খরচ হয়। আপনি যদি ২০২৩ সালের পরে  এই পোষ্ট টি দেখেন তাহলে খরচ এর থেকে কিছু বেশি বা কম হতে পারে।

আইইএলটিএস কত প্রকার বা IELTS এর কয়টি অংশ

IELTS মূলত চারটি প্রধান মৌলিক অংশে বিভক্ত। এগুলো হচ্ছে –

1. Listening বা শোনা: আপনার শ্রবণ দক্ষতা পরীক্ষা করার জন্য। এই অংশে আপনাকে ভয়েস শুনে বিভিন্ন ধরনের প্রশ্নের উত্তর দিতে হবে। এতে বিভিন্ন রেকর্ডিং অন্তর্ভুক্ত থাকে, যেমন কথোপকথন, মনোলোগ এবং উপস্থাপনা, আপনার বোঝার পরীক্ষা করার জন্য প্রশ্নগুলির উওর দিতে হবে।

2. Reading বা পড়া: Reading বিভাগটি ইংরেজিতে আপনার পড়ার দক্ষতা মূল্যায়ন করে। এতে আপনার বোঝাপড়া পরীক্ষা করার জন্য অনুষঙ্গী প্রশ্ন সহ নিবন্ধ, প্রবন্ধ বা প্রতিবেদনের মতো অনুচ্ছেদের একটি সিরিজ অন্তর্ভুক্ত রয়েছে। এখানে বিভিন্ন ধরনের প্রশ্ন আসতে পারে। যেমনঃ Multiple Choice Questions (MCQs), True/False/Not Given (TFNG), Sentence Completion, Summary Completion, Short Answer Questions ইত্যাদি

3. Writing বা লেখা: IELTS Writing এ দুটি পার্ট থাকে: টাস্ক 1 এবং টাস্ক 2। টাস্ক 1 এ আপনাকে একটি তথ্যপূর্ণ চিত্র, ডায়াগ্রাম, সারণি বা ফ্লো চার্ট দেওয়া হয় এবং তার উপর ভিত্তি করে একটি সারসংক্ষেপ বা বর্ণনা লেখতে হয়। টাস্ক 2 তে আপনাকে একটি বিষয় দেওয়া হবে এবং আপনাকে এই বিষয়ে একটি প্রবন্ধ লেখতে হবে।

4. Speaking বা বলা: স্পিকিং বিভাগ আপনার ইংরেজি কথা বলার দক্ষতা মূল্যায়ন করে। এটি একজন পরীক্ষকের সাথে মুখোমুখি সাক্ষাৎকার এবং তিনটি ভাগে বিভক্ত। পার্ট 1-এ, আপনাকে নিজের সম্পর্কে এবং বিভিন্ন পরিচিত বিষয় সম্পর্কে সাধারণ প্রশ্নের উত্তর দিতে হবে। পার্ট 2-এ, আপনি একটি প্রদত্ত বিষয়ে এক মিনিটের প্রস্তুতির পর প্রায় দুই মিনিট কথা বিস্তারিত বলতে হবে। পার্ট 3-এ, আপনাকে পার্ট 2 এর বিষয় সম্পর্কিত আরও কিছু প্রশ্নের উওর দিতে হবে।

আইইএলটিএস (IELTS) ব্যান্ড স্কোর হিসাব।

IELTS পরীক্ষার ব্যান্ড স্কোর শুধুমাত্র আপনার ইংরেজি ভাষার সক্ষমতা ও দক্ষতা উপর ভিত্তি করে নির্ধারণ করা হয়। পরীক্ষা একটি ভাষা প্রীক্ষা হওয়ায়, ব্যান্ড স্কোর ক্রমাগত হয়ে থাকে ১ থেকে ৯ এর মধ্যে।

ielts band score chart
ielts band score chart

প্রতিটি পরীক্ষার অংশ (Listening, Reading, Writing, এবং Speaking) এর জন্য ব্যান্ড স্কোর প্রথমে আলাদা আলাদা নির্ধারণ করা হয়। তার পরবর্তী তে সবগুলো কে একসাথে করে গড় স্কোর নির্ধারণ করা হয়।

IELTS ব্যান্ড স্কোর অনুযায়ী মান। 

IELTS ব্যান্ড স্কোর 0 – 9 হিসাক করা হয়। আপনি ইংরেজি তে কতটা দক্ষ তা এই স্কোর এ্র উপর নির্ভর করে। সাধারনত 6-7 স্কোর হলে  বিদেশে লেখাপড়া বা কাজ এর জন্য এপ্লাই করা যায়। প্রতিষ্ঠান অনেক সময় বলে  দেয় যে কত স্কোর লাগবে। নিচে স্কোর অনুযায়ী আপনার দক্ষতা কতটুকু গন্য হবে তা দেওয়া হল।

1. Band Score 9: Expert User

2. Band Score 8: Very Good User

3. Band Score 7: Good User

4. Band Score 6: Competent User

5. Band Score 5: Modest User

6. Band Score 4: Limited User

7. Band Score 3: Extremely Limited User

8. Band Score 2: Intermittent User

9. Band Score 1: Non-User

10. Band Score 0: Did not attempt the test.

একজন মানুষ একাধিক বার IELTS পরিক্ষা দিতে পারবে কোন সমস্যা হবে না। তবে এর জন্য প্রত্যেক বার টাকা খরচ করতে হবে।

IELTS পরিক্ষা দিতে কি কি লাগে?

IELTS পরীক্ষা দেওয়ার জন্য নিম্নলিখিত প্রয়োজনীয় উপকরণ এবং তথ্য সমূহ প্রয়োজন হতে পারে:

1. আবেদন প্রক্রিয়া: আবেদন ফরম: IELTS পরীক্ষা দেওয়ার আগে, আপনাকে অনলাইন বা অফলাইনে আবেদন ফর্ম পূরণ করতে হবে।

আবেদন ফি: আবেদন ফরম জমা দিতে আপনাকে আবেদন ফি প্রদান করতে হবে।

2. পরীক্ষা সময়সূচি: আপনার আবেদন প্রক্রিয়া সম্পন্ন হলে, আপনার পরীক্ষা সময়সূচি প্রদান করা হবে।

3. পরীক্ষা প্রয়োজনীয় উপকরণ: আপনার প্রমাণপত্র (যেমন: পাসপোর্ট বা আপনার বর্তমান পরিচয়পত্র) যাচাই করতে প্রয়োজন হবে। পরীক্ষা সময়ে আপনার প্রমাণপত্রের মুদ্রণ তথা সকল তথ্য সঠিক থাকতে হবে।পেনসিল, এরেজার, বলপেন: IELTS পরীক্ষা দেওয়ার সময়, আপনাকে পেনসিল, এরেজার এবং বলপেন নিয়ে যেতে হবে।

4.পরীক্ষা কেন্দ্র: IELTS পরীক্ষা দেওয়ার সময়, আপনাকে একটি পরীক্ষা কেন্দ্র নির্বাচন করতে হতে পারে।

5. পরীক্ষা ফলাফল: আপনাকে পরীক্ষার পরে একটি অফিশিয়াল পরীক্ষা ফলাফল প্রদান করা হবে। যেখানে আপনার ব্যান্ড স্কোর প্রদর্শিত হবে। সাধারনত দুই সাপ্তাহ এর মধ্যে ফলাফল প্রধান করা হয়।

আশা করি IELTS নিয়ে আপনারা  অনেক তথ্য জানতে পারছেন।  যদি কোন ভুল তথ্য থেকে থাকে তাহলে অভষ্যই কমেন্ট এ জানানোর অনুরোধ করা হল। সবার সুস্বাস্থ্য কামনা করছি। ধন্যবাদ সবাই কে।

Read More: IELTS With British Council

3 thoughts on “IELTS কি এবং কেন ? IELTS দিতে কত টাকা খরচ হয়? IELTS পরীক্ষার পদ্ধতি এবং ব্যান্ড স্কোর।”

Leave a Comment