জানাজার নামাজের নিয়ম ও দোয়া। জানাযার নামাজের দোয়া, নিয়ম, নিয়ত ও ফজিলত।

আসসালামু আলাইকুম। জানাজার নামাজের নিয়ম ও দোয়া। সাধারণত মুসলিম ধর্মের কোন মানুষ মারা গেলে জানাজার নামাজ পড়া হয় । 

জানাযার নামাজের মাধ্যমে মৃত ব্যক্তির জন্য দোয়া করা হয়। জানাজার নামাজ পড়ার বিধান ফরযে কেফায়া বা সমাজের জন্য আবশ্যকীয় দায়িত্ব । যদি সমাজের কিছু মানুষ এটা পালন করে তাহলে বাকি সবাই এর দায় থেকে মুক্ত হয়ে যাবে। 

আর যদি সমাজের কোন ব্যক্তি এটা পালন না করে সে ক্ষেত্রে সমাজের সকলকে পাপী হতে হবে। তাই অভষ্যই সমাজ এর কিছু মানুষ এর হলেও এটা আদায় করতে হবে। আজকে আমরা জানাজার নামাজের শুরু থেকে শেষ পর্যন্ত শিখব।

জানাজার নামাজ এর ফরজ কয়টি ও কি কি।

জানাজার নামাজ এ  ২ টি কাজ ফরজ। ১- চার তাকবির ( আল্লাহু আকবার ) এ নামাজ পড়া। ২- দাড়িয়ে নামাজ পড়া।

জানাজার নামাজ এর সুন্নত কয়টি ও কি কি।

জানাজার নামাজ এ সুন্নত মোট ৪ টি। ১- ছানা পড়া ( প্রথম তাকবির এ)। ২- দুরুদ শরীফ পড়া ( দ্বিতীয় তাকবির এ)। ৩- মৃত ব্যক্তির জন্য দোয়া করা ( তৃতীয় তাকবির এ)। ৪- ন্যুনতম তিন কাতার করা। তবে মানুষ বেশি হলে কতার বেশি করা যাবে। তবে বিজোড় করা উওম। 

জানাযার নামাজের নিয়ত বাংলা। 

মনে রাখবেন যে কোন নামাজের নিয়ত করা ফরজ। ইসলামের বিধান অনুযায়ী কোন কাজের ফরজ বিধান ভঙ্গ করলে সেই কাজটি বাতিল হিসেবে গণ্য হয়। এজন্য যে কোন নামাজেরি নিয়ত করা বাধ্যতামূলক। তবে নিয়ত করা এবং নিয়ত পড়া দুইটা এক জিনিস নয়। আপনি যদি মনে মনে স্থির করেন যে আপনি জানাযার নামাজ পড়তে যাচ্ছেন সেটাই আপনার নিয়ত হয়ে যাবে। তারপর আপনি চাইলে নিয়ত পড়তে পারেন । 

প্রথম তাকবির এ যা যা পড়তে হবে ।

আল্লাহু আকবার বলে হাত বাঁধতে হবে। তারপর ছানা পড়তে হবে। নিচে ছানা আরবি, বাংলা উচ্চারন ও  বাংলা অর্থ সহ দেওয়া হলো: 

سُبْحَانَكَ اللَّهُمَّ وَبِحَمْدِكَ وَتَبَارَكَ اسْمُكَ وَتَعَالَى جَدُّكَ وَلاَ إِلَهَ غَيْرُكَ

উচ্চারণ: সুবহা-নাকা আল্লা-হুম্মা ওয়া বিহামদিকা ওয়া তাবা-রাকাসমুকা ওয়া তা আ-লা জাদ্দুকা ওয়া লা-ইলা-হা গাইরুকা।

অর্থ: হে আল্লাহ! তোমার প্রশংসার সাথে তোমার পবিত্রতা বর্ণনা করছি। তোমার নাম চির বরকতময়, সকলের ঊর্ধ্বে, সকলের শীর্ষে তোমার মর্যাদা, তুমি ছাড়া কোন মাবুদ নেই।

দ্বিতীয় তাকবির এ যা যা করতে হবে। 

আল্লাহু আকবর বলার পর দ্বিতীয় তাকবির এ দুরুদ পড়তে হবে। আমরা নামাজ এ যে দুরুদ পড়ি ওটাই পড়তে হবে (দুরুদে ইব্রাহিম)। 

اَللّٰهُمَّ صَلِّ عَلٰى مُحَمَّدٍ. وَّعَلٰى اٰلِ مُحَمَّدٍ كَمَا صَلَّيْتَ عَلٰى اِبْرَاهِيْمَ وَعَلٰى اٰلِ اِبْرَاهِيْمَ' اِنَّكَ حَمِيْدٌ مَّجِيْدٌ. اَللّٰهُمَّ بَارِكْ عَلٰى مُحَمَّدٍ. وَّعَلٰى اٰلِ مُحَمَّدٍ كَمَا بَارَكْتَ عَلٰى اِبْرَاهِيْمَ وَعَلٰى اٰلِ اِبْرَاهِيْمَ. اِنَّكَ حَمِيْدٌ مَّجِيْدٌ.

উচ্চারণ: “আল্লাহুম্মা সাল্লি আলা মুহাম্মাদিউ ওয়া আলা আলি মুহাম্মাদিন, কামা সাল্লাইতা আলা ইবরাহিমা ওয়া আলা আলি ইবরাহীমা ইন্নাকা হামিদুম মাজিদ। আল্লাহুম্মা বারিক আলা মুহাম্মদিউ, ওয়া আলা আলি মুহাম্মদিম, কামা বারাকতা আলা ইবরাহীমা, ওয়া আলা আলি ইবরাহিমা, ইন্নাকা হামিদুম মাজিদ।”

অর্থ: হে আল্লাহ! তুমি মুহাম্মাদ (সাল্লাল্লাহু ‘আলাইহি ওয়া সাল্লাম) ও তাঁর বংশধরের প্রতি রহমত নাযিল করো। যেমন রহমত ‍তুমি নাযিল করেছিলে ইবরাহীম আলাইহিস সালাম ও তাঁর বংশধরের প্রতি। নিশ্চয় তুমি প্রশংসনীয় ও মর্যাদাবান। হে আল্লাহ! তুমি মুহাম্মাদ সাল্লাল্লাহু ‘আলাইহি ওয়া সাল্লাম ও তাঁর বংশধরের প্রতি বরকত নাযিল করো। যেমন বরকত তুমি  নাযিল করেছিলে ইবরাহীম আলাইহিস সালাম ও তাঁর বংশধরের প্রতি। নিশ্চয় তুমি প্রশংসনীয় ও মর্যাদাবান। 

তৃতীয় তাকবির এ যা যা পড়তে হবে। 

তৃতীয় তাকবির এ মৃত ব্যক্তির জন্য দোয়া করতে হয়। মৃত ব্যক্তির উপর নির্ভর করে কয়েক রকম দোয়া রয়েছে। নিচে দোয়া গুলো দেওয় হল। 

প্রাপ্ত বয়স্ক হলে নিচের দোয়াটি পড়তে হবে।

اَللّٰهُمَّ اغْفِرْ لِحَيِّنَا وَمَيِّتِنَا وَشَاهِدِ نَا وَغَائِبِنَا وَصَغِيْرِنَا وَكَبِيْرِنَا وَذَكَرِنَا وَاُنْثَنَا اَللّٰهُمَّ مَنْ اَحْيَيْتَهُ مِنَّا فَاَحْيِهِ عَلٰى الْاِسْلاَمِ وَمَنْ تَوَفَّيْتَهُ مِنَّا فَتَوَفَّهُ عَلٰى الْاِيْمَانِ

উচ্চারণ : আল্লাহুম্মাগ ফিরলি হায়্যিনা ওয়া মাইয়্যিতিনা ওয়া শাহিদিনা ওয়া গায়িবিনা ওয়া সাগীরিনা ওয়া কাবীরিনা ওয়া যাকারিনা ওয়া উনছানা। আল্লাহুম্মা মান আহইয়াহতাহু মিন্না, ফাআহয়িহী আলাল ইসলামি ওয়া মান তাওয়াফ ফাইতাহু মিন্না ফাতাওয়াফফাহ আলাল ইমান।

অর্থ: ‘হে আল্লাহ, আমাদের জীবিত ও মৃত, উপস্থিত ও অনুপস্থিত, ছোট ও বড় এবং পুরুষ ও নারী সকলকে ক্ষমা করে দিন। হে আল্লাহ, আপনি আমাদের মধ্য থেকে যাদেরকে জীবিত রেখেছেন ইসলামের উপর জীবিত রাখেন আর যাদেরকে মৃত্যু দান করেছেন তাদেরকে ঈমানের সঙ্গেই মৃত্যু দান করেন।’

অপ্রাপ্ত বয়স্ক শিশু হলে নিচের দোয়াটি পড়তে হবে।

اَللّٰهُمَّ اجْعَلْهُ لَنَا فَرَطًا وَّاجْعَلْهُ لَنَا اَجْرً ا وَّاجْعَلْهُ لَنَا شَافِعًا وَّمُشَفِّعًا

উচ্চারণ : আল্লাহুম্মাজ আলহু লানা ফারাতাও ওয়াজ আলহু লানা আজরাও ওয়াজ আলহু লানা শাফিআও ওয়া মুশাফফাআ।


অর্থ: হে আল্লাহ, আপনি তাকে আমাদের জন্য অগ্রবর্তী হিসেবে কবুল করুন, তাকে করুন আমাদের জন্য প্রতিদান স্বরূপ এবং তাকে বানান আমাদের জন্য সুপারিশকারী -যার সুপারিশ কবুল করা হবে।

অপ্রাপ্ত বয়স্ক লাশ মেয়ের হলে ‘আলহু’ (هُ) স্থানে ‘আলহা’ (هَا) বলতে হবে। তারপর চতুর্থ তাকবির দিবে । তারপর সালাম ফেরাবে। ডানদিকে সালাম ফিরিয়ে ডান হাত ছাড়বে । বামদিকে সালাম  ফিরিয়ে বাম হাত নামাবে। এভাবে নামাজ সম্পন্ন করবে।

জানাজার নামাজ শুধু পুরুষদের জন্য। নারীদের জানাজার নামাজে অংশগ্রহণ করার বিধান নেই। জানাজার নামাজ পড়া সবার জন্য ফরজ না হলেও এক মুসলিমের ওপর অন্য মুসলিমের ছয়টি অধিকার রয়েছে। তার মধ্যে একটি হলো জানাজা। 

TAGS: জানাজার নামাজের নিয়ম ও দোয়া জানাজার নামাজের দোয়া সমূহ pdfজানাজার নামাজের নিয়ম ও দোয়াজানাজার নামাজের নিয়ম ও দোয়া জানাজার নামাজের দোয়া সমূহ pdfলজানাজার নামাজের নিয়ম হানাফিজানাজার নামাজের দোয়া বাংলায়জানাযার নামাজের দোয়া, নিয়ম, নিয়ত ও ফজিলতজানাযার নামাজের দোয়া, নিয়ম, নিয়ত ও ফজিলতজানাজা পড়ার নিয়ম-রীতি ও দোয়া,

এই পোস্টটি পরিচিতদের সাথে শেয়ার করুন

পূর্বের পোস্ট দেখুন পরবর্তী পোস্ট দেখুন
এই পোস্টে এখনো কেউ মন্তব্য করে নি
মন্তব্য করতে এখানে ক্লিক করুন

অর্ডিনারি আইটির নীতিমালা মেনে কমেন্ট করুন। প্রতিটি কমেন্ট রিভিউ করা হয়।

comment url