জার্মানি ভিসা খরচ। জার্মানিতে স্টুডেন্ট ভিসায় যাওয়ার উপায়। জার্মানিতে মাস্টার্স স্কলারশিপ।

আসসালামু আলাইকুম। যারা বিদেশে উচ্চশিক্ষার জন্য আগ্রহী তাদের পছন্দের তালিকার প্রথম দিকেই থাকে জার্মানি। জার্মানি প্রথম দিকে থাকার অনেকগুলো কারণ রয়েছে। প্রথমত জার্মানি একটি উন্নত দেশ। উন্নত দেশ হলেও এদেশের সরকার এখন পর্যন্ত পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়গুলোতে কোন টিউশন ফি ছাড়াই পড়ার সুযোগ দিচ্ছে। জার্মানিতে আন্তর্জাতিক স্টুডেন্টের যাওয়ার এটা অনেক গুরুত্বপূর্ণ একটা কারণ। আজকের পোস্টে জার্মানিতে উচ্চশিক্ষা নিয়ে বিস্তারিত তথ্য বলব।

জার্মানিতে স্টুডেন্ট ভিসার খরচ। বাংলাদেশ থেকে জার্মানি যাওয়ার উপায়। জার্মানিতে মাস্টার্স স্কলারশিপ।

জার্মানি ভিসা খরচ

জার্মানি সম্পর্কে বিস্তারিত তথ্য।

জার্মানি ইউরোপের একটি দেশ । জার্মানির রাজধানী Berlin এবং এটাই এদের সবচেয়ে বড় শহর। জার্মানির মানুষ যথেষ্ট ভাল ইংরেজি বলতে পারে। তবে তারা তাদের ভাষাকে অনেক বেশি সম্মান করে। German হচ্ছে তাদের রাষ্ট্রীয় ভাষা। জার্মানির মুদ্রার নাম হচ্ছে ইউরো।

জার্মানি তে পড়ালেখার খরচ কিরকম। 

প্রথমেই আপনাদের বলেছি জার্মানির সরকার পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়গুলোতে ফ্রিতে পড়ার সুযোগ দিচ্ছে । তাই কলেজে খুব একটা খরচ নেই। তবে যেহেতু এখানে কথা হচ্ছে জার্মানে পড়ালেখা খরচ নিয়ে। তাই সর্বমোট কি পরিমাণ খরচ হতে পারে সেটা আপনার একটা ধারণা এখান থেকে পেয়ে যাবেন।

জার্মানির এক বছরের খরচ আপনাকে আগে থেকেই জার্মানের একটা ব্যাংকে পাঠাতে হবে। সেখান থেকে আপনাকে প্রত্যেক মাসে টাকা দেওয়া হবে। কত টাকা পাঠাতে হবে এটা নির্ভর করে সময়ের উপর। বর্তমান সময়ে অর্থাৎ ২০২৩ সালে বাংলাদেশী টাকায় প্রায় ১৫ থেকে ২০ লক্ষ টাকা পাঠাতে হয়। যেটা আপনাকে সমান ১২ ভাগে ভাগ করে প্রত্যেক মাসে দেওয়া হবে।

অন্যান্য উন্নত দেশের মতো জার্মানিতেও চলাফেরা এবং থাকা খাওয়ার খরচ অনেক বেশি। বাসা ভাড়া থেকে থাকা এবং খাওয়ার জন্য আপনার প্রত্যেক মাসে প্রায় এক লক্ষ টাকার মতো লেগে যাবে এটা আপনি ধরে নিতেপারেন।

জার্মানি পড়তে কি IELTS লাগবে। 

অন্যান্য ইংলিশ স্পিকিং দেশের মতো জার্মানিতে পড়তেও IELTS  লাগে। বিশ্ববিদ্যালয় এবং সাবজেক্ট এর উপর নির্ভর করে যে কত পয়েন্ট লাগবে। অনেক বিশ্ববিদ্যালয়ে IELTS এর  বিকল্প অন্য কিছু থাকতে পারে। তবে জার্মানির বেশিরভাগ বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়ার জন্য এটা বাধ্যতামূলক লাগবেই।

জার্মানির শিক্ষাব্যাবস্থা কেমন??  

প্রথমে জার্মানির শিক্ষা ব্যবস্থার মান নিয়ে আলোচনা করা যাক। জার্মানির শিক্ষা ব্যবস্থা অনেক উচ্চমানের। এখানে আপনি অনেক ভালো ভালো বিশ্ববিদ্যালয় পাবেন। তবে বাংলাদেশের সাথে জার্মানির বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষাব্যবস্থার কিছুটা পার্থক্য রয়েছে।

বাংলাদেশের সাধারণত আমরা এইচএসসি পরীক্ষা দিয়ে অনার্সে ভর্তি হই । কিন্তু জার্মানিতে আপনাকে অনার্স করতে হলে কমপক্ষে 13 বছরের শিক্ষা শেষ করতে হবে। এজন্য আপনি যদি জার্মানিতে ব্যাচেলর করতে চান তাহলে বাংলাদেশের যে কোন একটা বিশ্ববিদ্যালয় এক বছর পরে তারপর জার্মানি যেতে হবে।

এই ১ বছর আপনার জার্মানি সাপোর্ট করে এরকম একটা বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়তে হবে। আপনি অনলাইনে সার্চ করলেই দেখতে পাবেন যে কোন কোন বিশ্ববিদ্যালয়ে জার্মানি সাপোর্ট করে। আপনি যদি এই এক বছর লেখাপড়া করার পর ভালো ক্রেডিট পান তাহলে আপনার জার্মানি চান্স পাওয়ার সম্ভাবনা বেশি থাকবে।

জার্মানি তে কি পার্ট টাইম জব পাওয়া যায়।

অন্যান্য ইংলিশ স্পিকিং কান্ট্রির তুলনায় জার্মানিতে জব পাও একটু কঠিন। বিশেষ করে লোকাল এলাকায় আপনি যদি জার্মান ভাষা না পারেন তাহলে খুব সহজে জব পাবেন না। তবে উন্নত সিটিতে আপনি জার্মান ভাষা না পারলেও ইংরেজি পারলে জব পেতে পারেন। জার্মানে পড়তে গেছে এমন ছাত্র-ছাত্রীদের মধ্যে অনেকেই বলেছে যে জার্মানের জব পাওয়া অনেকটা কঠিন। ভাই আপনার যদি জার্মান যাওয়ার পরিকল্পনা থাকে তাহলে আমি আপনাদের সাজেশন করব। আপনারা আগে থেকেই জার্মান ভাষা প্র্যাকটিস করে নেবেন। তাহলে এটা আপনাকে জব পেতে অনেকটা সহায়তা করবে।

যেহেতু জার্মানি অনেক উন্নত একটা দেশ তাই এখানে আপনি কাজের ভালো পারিশ্রমিক পাবেন। জার্মানিতে সর্বনিম্ন কাজের পারিশ্রমিক ৮-১১ ইউরো থেকে শুরু করে আরও বেশি হয়ে থাকে। জার্মানির সরকার আপনাকে সপ্তাহে ২০ ঘন্টা কাজ করার অনুমতি দেবে।

জার্মানিতে কি স্কলারশিপ পাওয়া যায়। 

বলতে গেলে পৃথিবীর প্রায় সকল দেশে স্কলার্শিপ দেয়। জার্মানি তে পপুলার কিছু স্কলারশিপ রয়েছে।ডাড হচ্ছে জার্মানির অনেক পপুলার একটা স্কলারশিপ । এছাড়াও অনেক সরকারি বেসরকারি স্কলারশিপ রয়েছে। আপনি চাইলে সেগুলিতে আবেদন করতে পারেন। আপনি যদি স্কলারশিপ পান তাহলে সেখানে আপনি থাকা খাওয়ার জন্য খরচ পেয়ে যাবেন। তবে এখানেও অনেক বেশি প্রতিযোগিতা তাই যত বেশি ভালো ভালো ডকুমেন্ট দেখাতে পারবেন স্কলারশিপ পাওয়ার সম্ভাবনা ততো বাড়বে।

জার্মানি হোক কিংবা অন্য কোন দেশ আপনি যত বেশি এক্সটা কারিকুলাম অ্যাক্টিভিটিস করবেন। আপনার স্কলারশিপ হওয়া সম্ভাবনা তত বেশি থাকবে। এছাড়াও আপনার ভালো রেজাল্ট থাকতে হবে এবং আরো অন্যান্য ডকুমেন্ট থাকতে হবে। সবশেষ যদি আপনার ভাগ্য ভাল থাকে তাহলে আপনি হয়তো একটা স্কলারশিপ পেয়ে যাবেন। স্কলারশিপ পাওয়ার জন্য একটা বিষয় সবসময় মাথায় রাখবেন অনেকগুলো স্কলারশিপ আপনাকে আবেদন করতে হবে। তাহলে আপনার স্কলারশিপ পাওয়ার সম্ভাবনা অনেকটা বেড়ে যাবে।

 জার্মানি তে কাদের যাওয়া উচিৎ কাদের উচিৎ নয়। 

আপনি জার্মানিতে গিয়ে কাজ করে আপনার টাকা পরিশোধ করবেন এই সম্ভাবনা খুব একটা নেই। তাই যদি আপনার পরিবার কমপক্ষে তিন বছরের থাকা খাওয়ার খরচ বহন করতে পারে তাহলেই কেবল আপনি জার্মানিতে যাবেন। আনুমানিক ৫০ লাখ টাকার মত খরচ হতে পারে সব মিলিয়ে। কমপক্ষে ৩০ থেকে ৪০ লাখ টাকা যদি আপনার ফ্যামিলি আপনার উপর খরচ করতে পারে তাহলেই আপনি জার্মানিতে যাবেন। না, হলে আপনি জার্মানিতে গিয়ে বিপদে পড়তে পারেন।

শেষকথা: আপনি যদি জার্মানিতে যান একটা উন্নত দেশ হিসেবে সেখানে অনেক রকম সুযোগ সুবিধা আপনি পাবেন। সবচেয়ে বড় কথা হচ্ছে উন্নত একটা পরিবেশ পাবেন একটি নিরপেক্ষ শাসন ব্যবস্থা এবং উন্নত চিকিৎসা ব্যবস্থা পাবেন। তবে সবচেয়ে ভালো হবে আপনি যদি সেখানে স্কলারশিপ নিয়ে যেতে পারেন। তাহলে আপনি সেখানে পড়ালেখার জীবনে ভাল একটা অভিজ্ঞতা অর্জন করতে পারবেন। না, হলে আপনাকে সেখানে জব করা নিয়ে একটু কষ্ট করতে হবে। ধন্যবাদ সবাইকে।

Releted Keyword: জার্মানিতে পড়াশোনা খরচ, জার্মানিতে মাস্টার্স স্কলারশিপ, জার্মানি কাজের ভিসা ২০২৪,  জার্মানিতে মাস্টার্স খরচ, বাংলাদেশ থেকে জার্মানি যাওয়ার উপায়, জার্মানি ভিসা প্রসেসিং, জার্মানিতে স্টুডেন্ট ভিসা প্রসেসিং, জার্মানিতে স্টুডেন্ট ভিসার খরচ, study in germany from bangladesh with scholarship, Study in germany from bangladesh cost, Study in germany from bangladesh requirements,  study in germany from bangladesh agency, Study in germany from bangladesh fees, undergraduate study in germany from bangladesh, germany student visa from bangladesh cost, masters in germany from bangladesh,

Leave a Comment